স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা

ঘামাচি দূর করবেন? উপায় তো আপনার ঘরের মধ্যেই আছে!

চাঁদি ফাটা রোদ আর প্রখর তাপে প্রাণ ওষ্ঠাগত হওয়ার সময় চলছে। এই সময় ত্বকের সমস্যাও বেড়ে যায়। সারা দিন ঘেমে নেয়ে থাকা শরীরে ঘামাচির প্রকোপ বেড়ে যায়। আর এই ঘামাচির জেরে লেগেই থাকে চুলকানির সমস্যা। 

একেক জনের শরীরে ঘামাচির প্রভাব একেক রকমভাবে হয়ে থাকে। র‌্যাশ, প্রদাহ সব মিলিয়ে ত্বকের ক্ষতি তো হয়ই,সঙ্গে অস্বস্তি ও শারীরিক কষ্টও বাড়ে। বাজার চলতি কিছু পাউডার বা সাবান এ সমস্যা থেকে দূর করতে পারে। কিন্তু তাতে নানা রাসায়নিক মেশানো থাকে যার ফলে ত্বকের সমস্যা হতে পারে। ঘামাচির বাড়াবাড়ি রকমের সমস্যা থাকলে তাই অবশ্যই ত্বক বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন। কিছু ঘরোয়া উপায়েও সমস্যার সমাধান হতে পারে। যেমন- 

শুকনো কাপড়ে কয়েক টুকরো বরফ নিয়ে ১০-১৫ মিনিট ধরে ঘামাচির ওপর লাগান। দিনে ৩-৪ বার এভাবে করলে ভালো ফল পাওয়া যায়। 

চার টেবিল চামচ মুলতানি মাটির সঙ্গে পরিমাণ মতো গোলাপ জল মিশিয়ে ঘামাচির ওপর লাগান। কিছু ক্ষণ রেখে শুকিয়ে নিন। এর পর ধুয়ে ফেলুন। উপকার পাবেন।

এক কাপ ঠান্ডা জলে এক চামচ বেকিং সোডা মিশিয়ে নিন। এর পর পরিষ্কার কাপড় ডুবিয়ে ঘামাচির ওপর ১০ মিনিট পর্যন্ত রেখে আলতো করে মুছতে থাকুন। 

ঘামাচির মোক্ষম নিরাময় হল অ্যালোভেরা। ঘামাচির ওপর শুধু অ্যালোভেরার রস বা হলুদের সঙ্গে অ্যালোভেরার রস মিশিয়ে লাগান। কিছু ক্ষণ রেখে ধুয়ে ফেলুন। 

নিম পাতা ঘামাচির উপশম হিসেবে ভালো কাজ করে। নিম পাতার রসের সঙ্গে গোলাপ জল মিশিয়ে ঘামাচির ওপর লাগিয়ে তার ওপর নিমের ডাল বোলালেও আরাম পাওয়া যায়। 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *